ইসলামী আকীদাহ (আরবী-বাংলা)

0
733

ইসলামী আকীদাহ (আরবী-বাংলা)

العقائد الإسلامية
إن الله واحد لا شريك له- قديم لذاته وصفاته قديمة- العقيدة الطحاوية
كل ما سواه حادث- شرح العقائد النسفية
لا يحيطه العقل ولا تدركه الأبصار- صمد لا غني عنه-
لا إله إلا هو حي لا يموت-
لا يساويه أحد ولا يشبهه شيئ-
يعلم ما ظهر وما بطن-
بصير لا يغيب عن بصره شيئ-
يسمع الخفي والجهر ولا يكون إلا ما يريد-
قدير لا يخرج عن قدرته شيئ- العقيدة الطحاوية
لا يعلم الغيب إلا الله حتي الأنبياء والأولياء- شرح العقائد النسفية
لا حاضر ولا ناظر إلا هو حتي الأنبياء والأولياء- بدائع الكلام في عقائد الإسلام
ليس له ولد ولا صاحبة- سورة الجن
الله خالق كل شيئ ورازق بقدر كل شيئ-
لا حياة ولا موت إلا بأمره-
هو الشافي للأمراض والقاضي للحاجات- العقيدة الطحاوية
السجدة والنذر لغير الله كفر- سورة حم السجدة و سورة المائدة
الاستمداد من أهل القبور شرك- بدائع الكلام في عقائد الإسلام
التقدير بخيره وشره من الله تعالي- العقيدة الطحاوية
نؤمن بجميع الأنبياء والمرسلين-
نعتقد بعصمة الأنبياء كلهم- شرح العقائد
نبينا محمد صلي الله عليه وسلم عبد الله ورسوله-
هو مبعوث إلي كافة الناس والجن-
هو سيد المرسلين وخاتم النبيين- العقيدة الطحاوية
معراج النبي صلي الله عليه وسلم بجسده الشريف في اليقظة حق- شرح العقائد
لا نبي بعده لا أصلي ولا ظلي- بدائع الكلام في عقائد الإسلام
مدعي النبوة بعده وتابعه كافر- بدائع الكلام في عقائد الإسلام
حياة عيسي عليه السلام ورفعه حيا إلي السماء حق- سورة النساء ১৫৮-
ينزل النبي عيسي عليه السلام قبل القيامة متبعا لشريعة نبينا صلي الله عليه وسلم- شرح العقائد
القائل بالإبنية والتثليث كافر- سورة المائدة ৭৩- وسورة آل عمران ৪৯-
رد النصوص وإهانة النبي صلي الله عليه وسلم والاستهزاء بالشرع كفر- بدائع الكلام في عقائد الإسلام، شرح العقائد
معجزات الأنبياء حق- شرح العقائد
الأنبياء أحياء في قبورهم- مسند أبي يعلي
الصحابة خيار الأمة- العقيدة الطحاوية
نعترف بعدالة الصحابة كلهم- شرح العقائد
نشهد أنهم مرضيون عند الله ومبشرون بالجنة- سورة التوبة ১০০-
حب الصحابة من الإيمان و بغض الصحابة وطعنهم نفاق- العقيدة الطحاوية
فضل الخلفاء الراشدين علي ترتيب خلافتهم- العقيدة الطحاوية
الصحابة مصيبون في مشاجراتهم- شرح العقائد
الأولياء مقربون عند الله- سورة يونس ৬২-
وهم دون الأنبياء والصحابة- بدائع الكلام في عقائد الإسلام
كرامة الأولياء حق واحترام السلف واالتقليد بمذاهب الأئمة حتم لازم-
نؤمن بجميع ملائكة الله ونؤمن بجميع الكتب المنزلة من الله تعالي-
نؤمن بأن القرآن كلام الله والكتب كلها منسوخة بعد القرآن- العقيدة الطحاوية و شرح العقائد
خلافة المهدي عليه السلام في آخر الزمان حق- مشكاة المصابيح
خروج الدجال ويأجوج ومأجوج حق-
طلوع الشمس من المغرب وخروج الدابة حق- العقيدة الطحاوية
وأشراط الساعة الأخري ونفخ الصور حق- صحيح البخاري
سؤال منكر ونكير وعذاب القبر وتنعيمه حق-
البعث بعد الموت والحشر حق والحوض والشفاعة حق-
وزن الأعمال والحساب والكتاب حق والصراط والجنة والنار حق-
روية الله تعالي في الآخرة حق-
خلود المؤمنين في الجنة وخلود الكافرين في النار حق-
الفاسق لا يكفر ولا يخلد في النار أبدا- العقيدة الطحاوية
عرش الرحمن وكرسيه أعظم المخلوقات واللوح والقلم والميثاق حق-
الدين عند الله الإسلام ولا نجاة عن النار إلا بالإسلام- العقيدة الطحاوية
نصب الإمام لتنفيذ الإسلام لازم- شرح العقائد-
**************************************

ইসলামী আকীদাহ (বাংলা অনুবাদ)

  • নিশ্চয় আল্লাহ তা’আলা এক। তাঁর কোনো শরিক নেই। তাঁর সত্তা ও গুণাবলী অনন্ত অসীম। তিনি ছাড়া সব  কিছু ক্ষণস্থায়ী।
  • কারো জ্ঞান-বুদ্ধি তাঁকে বেষ্টন করতে পারে না এবং কোনো চর্ম চক্ষু তাঁকে দেখতে পারে না। তিনি শাশ্বত  অমুখোপেক্ষী সত্তার অধিকারি। তিনি ছাড়া কোনো উপায় নেই।
  • তিনি ছাড়া কোনো ইলাহ নেই। তিনি চিরঞ্জীব সত্তা। তাঁর মৃত্যু নেই। কেউই তাঁর সমকক্ষ হতে পারে না  এবং  তাঁর মতো দ্বিতীয় কোনো সত্তা নেই। তিনি প্রকাশ্য ও গোপন সব কিছু জানেন।
  • তিনি কাছের দূরের দৃশ্যমান-অদৃশ্য সব কিছু দেখেন। তাঁর দৃষ্টির অগোচরে কিছুই নেই। তিনি উচ্চস্বর ও  নিম্নস্বর সব ধরণের আওয়ায শোনতে পান এবং তাঁর ইচ্ছা ব্যতিত কোনো কিছুই হতে পারে না।
  • তিনি সব বিষয়ের ওপর সর্ব ক্ষমতাবান। তাঁর সামর্থ্যের বাইরে কোনো কিছুই নেই।
  • তিনি ছাড়া অন্য কেউ অদৃশ্যের তথ্যাবলী জানে না এবং সদা সর্বদা তিনি সবখানে বিরাজমান থাকেন।
  • তিনি সর্বদা সচেতনও থাকেন। এমনকি আল্লাহ তা’আলার পক্ষ থেকে প্রেরিত আম্বিয়া আলাইহিমুস সালাম  এবং নেককার বান্দাগণও অদৃশ্যের তথ্যাবলী সম্পর্কে অবগত নন। তাঁরাও সর্বদা সবখানে বিরাজমান কিংবা  সচেতন থাকতে পারেন না। তাঁর কোনো স্ত্রী-সন্তান নেই।
  • আল্লাহ তা’আলাই সব কিছু সৃষ্টি করেছেন এবং একমাত্র তিনিই সবাইকে পরিমিতভাবে রিযিক প্রদান করেন।
  • সমগ্র সৃষ্টিকুলের জীবন-মৃত্যু একমাত্র তাঁরই হাতে। তাঁর ইচ্ছা ব্যতিত কেউ বাঁচতেও পারে না আবার মরতেও পারে না।
  • তিনি সব ধরণের রোগের আরোগ্য দানকারী এবং সবার প্রয়োজন পূরণকারী।
  • আল্লাহ তা’আলা ছাড়া অন্য কারো নামে সিজদা কিংবা মান্নত করা কুফরি।
  • কবরের অধিবাসীদের কাছে কোনো বিষয়ে সাহায্য প্রার্থনা করা শিরকের অন্তর্ভুক্ত।
  • ভালো-মন্দ সব কিছুর সিদ্ধান্ত একমাত্র আল্লাহ তা’আলার পক্ষ থেকে।
  • আমরা সমস্ত প্রেরিত নবী ও রাসূলগণের ওপর ঈমান আনয়ন করেছি।
  • আমরা বিশ্বাস করি- সমস্ত নবী ও রাসূলগণ নিষ্পাপ। আমাদের নবী মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আল্লাহ তা’আলার বান্দা ও রাসূল। তিনি সমগ্র মানব জাতি ও জিন জাতির প্রতি প্রেরিত হয়েছেন। তিনি সমস্ত আম্বিয়া আলাইহিমুস সালামের নেতা এবং তিনিই সর্বশেষ নবী।
  • জাগ্রত অবস্থায় স্বশরীরে নবীজি মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের উর্ধ্বাকাশে ভ্রমণ সত্য; এতে কোনো সন্দেহ নেই।
  • তাঁর পরে মূল কিংবা ছায়া কোনো নবীই নেই। নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের পরে নবুয়তের দাবিদার অথবা মিথ্যা নবী দাবিদারের অনুসারী সবাই কাফির সাব্যস্ত হবে।
  • ঈসা আলাইহিস সালামের জীবিত থাকা এবং তাঁকে আকাশের দিকে জীবন্ত উঠিয়ে নেওয়ার বিষয়টি সত্য।
  • ঈসা আলাইহিস সালাম কিয়ামতের আগে আসমান থেকে পৃথিবীতে অবতরণ করবেন। তখন তিনি আমাদের নবী মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের অনুসারী হবেন। ত্রিত্ববাদ কিংবা আল্লাহ তা’আলার পুত্রের দাবি করা সম্পূর্ণ কুফরি।
  • শরীয়তের সুস্পষ্ট প্রমাণাদিকে প্রত্যাখ্যান করা এবং নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে কটাক্ষ করা কুফরি। শরীয়তের বিধি-বিধান নিয়ে উপহাস করাও কুফরি।
  • আম্বিয়া আলইহিমুস সালামের পক্ষ থেকে প্রকাশিত মু’জিযা সত্য।
  • আম্বিয়া আলাইহিমুস সালাম তাঁদের স্বীয় কবরে জীবিত আছেন।
  • প্রিয় নবীজির সাহাবীগণ উম্মাহর মধ্যে সর্বোত্তম। আমরা নবীজির সমস্ত সাহাবীগণের ন্যায় পরায়ণতার ব্যাপারে আস্থা রাখি।
  • আমরা স্বাক্ষ্য দিচ্ছি, তাঁরা সবাই আল্লাহ তা’আলার প্রিয় এবং আল্লাহ তা’আলা তাঁদের সবার প্রতি সন্তুষ্ট।
  • সাহাবীগণের প্রতি মুহাব্বত রাখা ঈমানের অন্তর্ভুক্ত এবং তাঁদের প্রতি বিদ্বেষ পোষণ কিংবা তাঁদেরকে কটাক্ষ করা মুনাফিকির অন্তর্ভুক্ত।
  • ইসলামের প্রথম চার খলীফাদের সবাই যথাক্রমে উম্মাহর মধ্যে সর্বোত্তম ব্যক্তিত্ব।
  • সাহাবীগণ তাঁদের পরস্পরের মতপার্থক্যের ক্ষেত্রে সঠিক অবস্থানে রয়েছেন।
  • নেককার বান্দাগণ তাঁদের স্বীয় রবের নৈকট্যপ্রাপ্ত। তাঁরা আম্বিয়া আলাইহিমুস সালাম এবং প্রিয় নবীর সাহাবীগণের পরবর্তী মর্যাদার অধিকারী। নেককার বান্দাগণের পক্ষ থেকে প্রকাশিত অলৌকিক ঘটনাবলী সত্য।
  • পূর্বসুরীগণকে সম্মান করা এবং চার ইমামের কোনো একজনের মতামত অনুসরণ করা আবশ্যক।
  • আমরা আল্লাহ তা’আলার সমগ্র ফিরিশতা জাতি এবং তাঁর পক্ষ থেকে অবতীর্ণ কিতাব সমূহের প্রতি ঈমান আনয়ন করেছি।
  • আমরা এ কথা বিশ্বাস করি- কুরআনর আল্লাহ তা’আলার কিতাব এবং কুরআন অবতীর্ণ হওয়ার পর আগের সব কিতাবের বিধান ও কার্যকারিতা বিলুপ্ত হয়ে গিয়েছে।
  • কিয়ামতের আগে শেষ যামানায় মাহদী আলাইহিস সালামের খিলাফত সত্য।
  • দাজ্জাল এবং ইয়াজুজ-মাজুজের আবির্ভাব সত্য।
  • কিয়ামতের আগে পশ্চিম দিক থেকে সূর্য্য উদিত হওয়া এবং ‘দাব্বাহ’ নামক প্রাণীর আবির্ভাব সত্য।
  • কুরআন ও হাদীসে বর্ণিত কিয়ামতের নিদর্শনগুলো এবং সিঙ্গায় ফুঁক দেওয়ার বিষয়টি সত্য।
  • মুনকার ও নকীরের প্রশ্ন করা এবং কবরের আযাব ও কবরে আরামদায়ক ব্যবস্থার বিষয়টি সত্য।
  • মৃত্যুর পর পুনরায় জীবিত হওয়া এবং শেষ দিবসে সমগ্র সৃষ্টিকুলের একস্থানে সমবেত হওয়ার বিষয়টি সত্য।
  • হাউযে কাওসারের পানি এবং নবীজির সুপারিশের বিষয়টিও সত্য।
  • আমলনামা লিপিবদ্ধ এবং হিসাব-নিকাশ সত্য।
  • পুলসিরাতের রাস্তা অতিক্রম এবং জান্নাত-জাহান্নাম সত্য; এতে কোনো সন্দেহ নেই।
  • আখিরাতে আল্লাহ তা’আলার সাক্ষাত লাভের বিষয়টি সত্য।
  • মুমিন বান্দাগণের জান্নাতে এবং কাফিরদের চিরকাল জাহান্নামে থাকতে হবে- এ কথাটি সত্য।
  • পাপাচার ব্যক্তিকে সরাসরি কাফির বলা যাবে না এবং পাপী ব্যক্তি কোনো কারণে জাহান্নামে শাস্তি পেলেও তা চিরকালের জন্য স্থায়ী হবে না; বরং তার শাস্তি নির্দিষ্ট মেয়াদে শেষ হবে।
  • দয়াময় আল্লাহ তা’আলার আরশ এবং তাঁর আসন সৃষ্টির মধ্যে সর্ববৃহত্তম।
  • লওহে মাহফুয, কলম এবং আল্লাহ তা’আলার ওয়াদা সত্য।
  • ইসলামই একমাত্র আল্লাহ তা’আলার পক্ষ থেকে মনোনীত জীবনব্যবস্থা।
  • ইসলাম ছাড়া জাহান্নাম থেকে কোনোভাবেই মুক্তি লাভ করা যাবে না।
  • পৃথিবীতে ইসলামের বিধান কার্যকর করার জন্য নেতা নির্বাচন করা অপরিহার্য বিষয়।
    (আল-আকীদাতুত তাহাবিয়্যাহ; শরহুল আকাইদিন নাফসিয়্যাহ; বাদাইয়ুল কালাম ফী আকাইদিল ইসলাম; সূরা আলে ইমরান- ৪৯; সূরা নিসা-১৫৮; সূরা মায়েদাহ-৭৩; সূরা তাওবাহ-১০০; সূরা ইউনুস-৬২; সূরা হামীম সিজদাহ; সূরা জিন; সহীহুল বুখারী; মিশকাত)
    **************************************

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.