বিজ্ঞান আগে না কুরআন আগে??- আব্দুল্লাহ আল মাসুম

0
781
Science from Quran
Science from Quran


– বিজ্ঞান কিছুদিন আগে জেনেছে, চাঁদের নিজস্ব কোনো আলো নেই। অথচ কুরআনে সূরা ফুরকানের ৬১ নং আয়াতে এই কথা বলা হয়েছে প্রায় ১৪০০ বছর আগে।
– বিজ্ঞান মাত্র দুইশত বছর আগে জেনেছে, চন্দ্র এবং সূর্য কক্ষ পথে ভেসে চলে। অথচ কুরআনে সূরা আম্বিয়ার ৩৩ নং আয়াতে এই কথা বলা হয়েছে প্রায় ১৪০০ বছর আগে।
– বিজ্ঞান বলে- মানুষের আঙ্গুলের ছাপ দিয়ে মানুষকে আলাদাভাবে সনাক্ত করা সম্ভব। যা আজ প্রমাণিত। অথচ কুরআনে সূরা কিয়ামার ৩ ও ৪ নং আয়াতে এই কথা বলা হয়েছে প্রায় ১৪০০ বছর আগে।
– ‘বিগ ব্যাং’ থিওরি আবিষ্কার হয় মাত্র চল্লিশ বছর আগে। অথচ কুরআনের সূরা আম্বিয়ার ৩০ নং আয়াতে এই কথা বলা হয়েছে প্রায় ১৪০০ বছর আগে।
– পানি চক্রের কথা বিজ্ঞান জেনেছে বেশি দিন হয়নি। অথচ কুরআনের সূরা যুমারের ২১ নং আয়াতে এই কথা বলা হয়েছে প্রায় ১৪০০ বছর আগে।
– বিজ্ঞান এই সেদিন জেনেছে, লবণাক্ত পানি ও মিষ্টি পানি একসাথে মিশ্রিত হয় না। অথচ কুরআনের সূরা ফুরকানের ২৫ নং আয়াতে এই কথা বলা হয়েছে প্রায় ১৪০০ বছর আগে।
– ইসলাম আমাদেরকে ডানদিকে ফিরে ঘুমাতে উৎসাহিত করেছে; যা নবীর সুন্নাতও বটে। অথচ বিজ্ঞান এখন বলছে ডানদিকে ফিরে ঘুমালে হার্ট ভাল থাকে।
– বিজ্ঞান এখন আমাদের জানাচ্ছে, পিপীলিকা মৃতদেহ কবর দেয়, এদের বাজার পদ্ধতি আছে। অথচ কুরআনের সূরা নামালের ১৭ ও ১৮ নং আয়াতে এই কথা বলা হয়েছে প্রায় ১৪০০ বছর আগে।
– ইসলাম মদ পানকে হারাম করেছে, অথচ চিকিৎসা বিজ্ঞান এখন বলছে মদ পান লিভারের জন্য ক্ষতিকর।
– ইসলাম শুকরের মাংসকে হারাম করেছে। অথচ বিজ্ঞান আজ বলছে- শুকরের মাংস লিভার, হার্ট ইত্যাদির জন্য খুবই ক্ষতিকর।
– রক্ত পরিসঞ্চালন এবং দুগ্ধ উৎপাদন এর ব্যাপারে আমাদের চিকিৎসা বিজ্ঞান জেনেছে মাত্র কয়েক বছর আগে। অথচ কুরআনের সূরা মুমিনূনের ২১ নং আয়াতে এই কথা বলা হয়েছে প্রায় ১৪০০ বছর আগে।
– মানুষের জন্মতত্ব ও ভ্রুণতত্ব সম্পর্কে বিজ্ঞান জেনেছে এই কদিন আগে। অথচ কুরআনের সূরা আলাকে এই কথা বলা হয়েছে প্রায় ১৪০০ বছর আগে।
– ভ্রুণতত্ব নিয়ে বিজ্ঞান আজ জেনেছে পুরুষই (শিশু ছেলে হবে না মেয়ে হবে) তা নির্ধারণ করে। অথচ কুরআনের সূরা নজমের ৪৫-৪৬ নং আয়াত এবং সূরা কিয়ামার ৩৭-৩৯ নং আয়াতে এই কথা বলা হয়েছে প্রায় ১৪০০ বছর আগে।
– একটি শিশু যখন গর্ভে থাকে, তখন সে আগে কানে শোনার যোগ্যতা অর্জন করে। তারপর চোখে দেখার যোগ্যতা অর্জন করে। অথচ কুরআনের সূরা সাজদাহর ৯ , ৭৬ নং আয়াতে এবং সূরা ইনসানে এই কথা বলা হয়েছে প্রায় ১৪০০ বছর আগে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.